তরুণ এই ব্রাজিলিয়ানে চোখ বার্সা-লিভারপুলের

0
82
গুস্তাবো মাইয়া । ছবি: মার্কা

তরুণ বয়সেই রিয়াল মাদ্রিদে যোগ দিয়েছেন ভিনিসিয়াস জুনিয়র, রদ্রিগো গোয়েস ও রেইনিয়ের জেসুস। তাদেরই জুড়ি গুস্তাবো মাইয়া। বয়স মাত্র ১৯ বছর। খেলেন ব্রাজিলের সাও পাওলোতে। এখনও সিনিয়র দলে অভিষেক হয়নি। তাতেই ডান পায়ে শক্তিশালী এই লেফট উইঙ্গারে চোখ পড়েছে বার্সেলোনা, লিভারপুল ও অ্যাথলেটিকো মাদ্রিদের মতো ক্লাবের।

তবে গুস্তাভো মাইয়া চান বার্সেলোনায় খেলতে। কাতালান ক্লাবটিরও পছন্দ হয়েছে এই তরুণকে। সাও পাওলোর সঙ্গে বার্সা একটি সমঝোতায়ও এসেছে। বার্সার কাছে এক মিলিয়ন ইউরোতে ওই তরুণকে বিক্রি করতে সম্মত সাও পাওলো। কিন্তু চুক্তিটা ৩০ জুনের মধ্যেই সম্পন্ন হতে হবে।

সেটা না পারলে মাইয়াকে কেনার জন্য অ্যাথলেটিকো-লিভারপুলের মতো ক্লাবের সঙ্গে প্রতিযোগিতায় নামতে হবে বার্সেলোনার। এছাড়া জুনের পরে মাইয়াকে কেনার জন্য খরচা করতে হবে অতিরিক্ত প্রায় সাড়ে তিন মিলিয়ন ইউরো।

মাইয়ার এজেন্ট নেলসন মৌরা স্প্যানিশ সংবাদ মাধ্যম মার্কাকে বলেন, ‘সে প্রথমে বার্সার একজন প্রতিনিধির নজরে আসে। আমরা এরই মধ্যে আলাপ শুরু করেছি। বার্সার সঙ্গে তার চুক্তি হওয়ার সম্ভাবনা আছে। বার্সেলোনার প্রতিনিধিরা কোপা সাও পাওলোর ম্যাচে তাকে দেখতে এসেছিল। ওই ম্যাচে মাইয়া তিন গোল করে। এরপরই তার সঙ্গে আলোচনায় অগ্রহী হয় বার্সা।’

মাইয়ার এজেন্ট আরও জানান, স্প্যানিশ ক্লাব বার্সার পক্ষ থেকে বলা হয়েছিল, তার সঙ্গে চুক্তির ব্যাপারটি গোপন রাখতে। কিন্তু এরই মধ্যে লিভারপুল এবং অ্যাথলেটিকো মাদ্রিদ তার সঙ্গে দ্রুতই চুক্তি করার আগ্রহ দেখানোয় বার্সার বিষয়টি গোপন রাখা সম্ভব হয়নি। তিনি জানান, মাইয়া ডান পায়ে খেলা লেফট উইঙ্গার। তবে বাঁ-পায়েও শক্তিশালী। তার খেলার ধরণ ভিনিসিয়াস ও রদ্রিগোর চেয়ে স্বতন্ত্র। নিজস্ব একটা ঢংয়ে ফুটবল খেলে সে।

ব্রাজিলের এই তরুণ ফরোয়ার্ডের এজেন্ট বলেন, ‘আরও কিছু ক্লাব মাইয়াকে নিতে আকর্ষণীয় প্রস্তাব দিয়েছে। কিন্তু সে সবসময়ই বার্সেলোনায় খেলতে চেয়েছে। একটা সাক্ষাৎকারে সেটা সে বলেছেও। তার খেলার ধরণও একদম বার্সার সঙ্গে মিলে যায়। কিন্তু করোনাভাইরাসের কারণে আমাদের অপেক্ষা করতে হতে পারে। দেখা যাক, সামনে কী হয়।’

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে