তদন্তে দোষী হলে ডিসির পুরস্কার কেড়ে নেওয়া হবে।

0
145
আহমেদ কবীর। ছবি: সংগৃহীত।

আপত্তিকর ভিডিও ফাঁসের ঘটনায় জামালপুরের জেলা প্রশাসক (ডিসি) আহমেদ কবীরকে বিশেষ ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওএসডি) করার পর তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। একজন যুগ্ম সচিবের নেতৃত্বে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ।

জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, তদন্তে দোষী সাব্যস্ত হলে আহমেদ কবীরের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। পাশাপাশি তাঁকে দেওয়া জাতীয় শুদ্ধাচার কৌশল পুরস্কার কেড়ে নেওয়া হবে।

আহমেদ কবীরকে ওএসডি করে গতকাল রোববার প্রজ্ঞাপন জারি করে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। মন্ত্রণালয়ের পৃথক প্রজ্ঞাপনে জামালপুরের নতুন ডিসি হিসেবে পরিকল্পনামন্ত্রীর একান্ত সচিব মোহাম্মদ এনামুল হককে নিয়োগ দেওয়া হয়।

সম্প্রতি একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়। যেখানে জামালপুরের ডিসি আহমেদ কবীরের সঙ্গে তাঁর অফিসের এক নারী সহকর্মীকে অন্তরঙ্গ অবস্থায় দেখা যায়। এ নিয়ে ব্যাপক সমালোচনার মুখে তাঁর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয় জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়।

জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন গত শনিবার রাতে বলেছিলেন, প্রাথমিক তদন্তের পরিপ্রেক্ষিতে আহমেদ কবীরকে ওএসডি করার সিদ্ধান্ত হয়েছে। এ বিষয়ে আরও তদন্ত করা হবে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে