ডেমোক্রেটিক প্রার্থীদের মধ্যে জনপ্রিয়তায় শীর্ষে বাইডেন

0
243
জো বাইডেন। ছবি: রয়টার্স

যুক্তরাষ্ট্রে ডেমোক্রেটিক পার্টির প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থীদের মধ্যে জনপ্রিয়তায় শীর্ষে রয়েছেন সাবেক ভাইস প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন।

২০২০ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের দৌড়ে ডেমোক্রেটিক পার্টি থেকে বাইডেনই এগিয়ে আছেন। সম্প্রতি প্রকাশিত একাধিক জনমত জরিপ অনুসারে, তাঁর প্রতি সমর্থন রয়েছে ২৯ শতাংশ ভোটারের।

তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে রয়েছেন সিনেটর বার্নি স্যান্ডার্স। তাঁর সমর্থক ১৫ শতাংশ। তাঁর পরেই রয়েছেন সিনেটর এলিজাবেথ ওয়ারেন। তাঁর প্রতি সমর্থন রয়েছে ১৪ শতাংশ ডেমোক্রেটিক ভোটারের।

নির্বাচনী পর্যবেক্ষকেরা একমত, ডেমোক্রেটিক প্রার্থীদের মধ্যে অনুষ্ঠিত প্রথম ও দ্বিতীয় বিতর্কে বাইডেন তেমন ভালো করতে না পারলেও দলটির অধিকাংশ সমর্থক এখনো তাঁকেই সমর্থন করছেন। এর কারণ এসব ভোটারের চোখে ট্রাম্পকে পরাজিত করার জন্য তিনিই সবচেয়ে যোগ্য প্রার্থী। স্বাস্থ্যবিমা থেকে আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ন্ত্রণসহ অধিকাংশ নীতিগত প্রশ্নে তাঁর অবস্থান বাম ও ডানের মাঝখানে। আদর্শগতভাবে কট্টর নয়—এমন ডেমোক্রেটিক সমর্থকদের কাছে বাইডেনের এই মধ্যপন্থা প্রশংসিত হয়েছে।

সিএনএনের জরিপ অনুসারে, গত ছয় মাসে বাইডেনের সমর্থন মোটামুটি একই জায়গায় রয়েছে। গত বছর অক্টোবরে তাঁর প্রতি সমর্থন ছিল ৩৩ শতাংশ ভোটারের। চলতি বছর মার্চে ছিল ৩২ শতাংশের। এখন সমর্থন রয়েছে ২৯ শতাংশ ভোটারের। আফ্রিকান-আমেরিকান ও পঞ্চাশোর্ধ্ব ডেমোক্রেটিক ভোটারদের মধ্যে জনপ্রিয়তাই তাঁর এই স্থিতাবস্থার মূল কারণ।

বার্নি স্যান্ডার্স বা এলিজাবেথ ওয়ারেন দলের উদারনৈতিক অংশের কাছে অধিক পছন্দের প্রার্থী। তবে নির্বাচনে ট্রাম্পকে পরাজিত করার ক্ষমতা তাঁদের রয়েছে—ভোটারদের মধ্যে এই আস্থা এখনো জন্মায়নি। স্যান্ডার্স ও ওয়ারেন উভয়েই মূলত দলের শ্বেতকায়, শহুরে ও শিক্ষিত সমর্থকদের জোরে দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থানে রয়েছেন। আফ্রিকান-আমেরিকান ও নিম্নমধ্যবিত্তদের মধ্যে উৎসাহ সঞ্চারিত করতে না পারলে তাঁদের সমর্থন আর খুব বেশি বাড়বে না বলে ধারণা করা হচ্ছে।

ডেমোক্রেটিক ভোটারদের মধ্যে বিভিন্ন নীতিগত প্রশ্নে মতভেদ থাকলেও একটা বিষয়ে তাঁরা একমত—২০২০ সালের নির্বাচনে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ লক্ষ্য ট্রাম্পকে পরাজিত করা। বাইডেনের স্ত্রী জিল বাইডেন গত সপ্তাহে নিউ হ্যাম্পশায়ারে এক নির্বাচনী সভায় খোলাখুলি বলেছেন, বিভিন্ন রাজনৈতিক বা নীতিগত প্রশ্নে সবাই তাঁর স্বামীর সঙ্গে একমত নাও হতে পারেন। কিন্তু ট্রাম্পকে পরাজিত করতে তিনিই যে সবচেয়ে যোগ্য, সে বিষয়ে কোনো বিতর্ক নেই। অতএব বাইডেনকেই ভোট দিতে হবে।

বর্তমানে ডেমোক্রেটিক পার্টির প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থীরা বাছাইপর্বে একে অপরের সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এই প্রতিদ্বন্দ্বিতা শুরু হয়েছিল ২৫ জন প্রার্থী নিয়ে। এর মধ্যে দুজন লড়াই থেকে সরে গেছেন। অন্যদিকে আগ্রহী প্রার্থী হিসেবে যুক্ত হয়েছেন আরও দুজন। ১২ ও ১৩ সেপ্টেম্বর বাছাইপর্বের তৃতীয় বিতর্ক অনুষ্ঠিত হবে। জনসমর্থনের নির্ধারিত মাত্রা অর্জিত না হওয়ায় আগ্রহী প্রার্থীদের অনেকেই হয়তো এই বিতর্কে অংশগ্রহণ করতে পারবেন না। এখন পর্যন্ত মাত্র ১০ জন প্রার্থী বিতর্কে অংশগ্রহণের যোগ্যতা অর্জন করেছেন।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে