জামালপুরে কৃষি ব্যাংকে গ্রাহকদের টাকা আত্মসাৎ, কর্মকর্তা গ্রেফতার

0
126
আটক ব্যাংক কর্মকর্তা মাসুদুর রহমান

জামালপুরের মেলান্দহে কৃষি ব্যাংক গ্রাহকের হিসাব থেকে কোটি টাকা লোপাট হয়েছে। ঘটনার মূলহোতা ব্যাংক কর্মকর্তা মাসুদুর রহমানকে সোমবার রাত ১০টার দিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

এ ঘটনায় ব্যাংকের আমানতধারীদের মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করছে।

আমানতের টাকা ফেরতের দাবিতে গ্রাহকরা রাতে ব্যাংক ঘেরাও করে ব্যাংক ম্যানেজার ও বিভাগীয় জেনারেল ম্যানেজারকে অবরুদ্ধ করে রাখে।

এ সময় ক্ষুব্ধ গ্রাহকরা ব্যাংকের সামনে বিক্ষোভ প্রদর্শন করে। পরিস্থিতি উত্তপ্ত হলে ব্যাংকের জেনারেল ম্যানেজার ও উর্ধ্বতন কর্তকর্তারা গ্রাহকদের আমানত ফেরত দেওয়ার আশ্বাস দিলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে।

বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংক মেলান্দহ শাখার ব্যবস্থাপক মো. শফিকুল ইসলাম জানান, একজন গ্রাহকের অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে সোমবার বিভিন্ন হিসাবে তল্লাশি চালিয়ে গ্রাহকের সিসি, সঞ্চয়ী ও চলতিসহ বিভিন্ন হিসাব থেকে প্রায় কোটি টাকা লোপাটের প্রমাণ মেলে।

এ ঘটনায় ব্যাংকের সেকেন্ড অফিসার মাসুদুর রহমানকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে তিনি আত্মসাতের কথা স্বীকার করেন।

পরে ব্যাংক কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা তাকে ব্যাংকে আটকে রাখেন। খবর পেয়ে ময়মনসিংহ বিভাগীয় জেনারেল ম্যানেজার দিদারুল ইসলাম মজুমদারের নেতৃত্বে কয়েক কর্মকর্তা যান ওই ব্যাংকে। উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের তদন্তে প্রায় কোটি টাকার লোপাটের প্রমাণ মেলে।

কৃষি ব্যাংক ময়মনসিংহ বিভাগীয় জেনারেল ম্যানেজার দিদারুল ইসলাম মজুমদার বলেন, প্রাথমিক তদন্তে আমানতকারী আকবর হোসেন, উমর আলী, আজিজুল হক, আবু হাসনাত, মুখলেছুর রহমান, নূর ইসলাম, ইমরান শেখ, রফিজল ইসলাম, আ. রহমান, রবিজল ইসলাম, শফিকুল ইসলাম, মাসুদুর রহমানসহ অনেক গ্রাহকের হিসাব থেকে প্রায় কোটি টাকা তসরুপের প্রমাণ পাওয়া গেছে।

টাকা আত্মসাতের ঘটনায় ব্যাংকের সেকেন্ড অফিসার মাসুদুর রহমানের বিরুদ্ধে মামলা করে পুলিশে সোপর্দ করা হয়েছে। গ্রাহকদের খোয়া যাওয়া টাকা ফেরত দেওয়া হবে বলেও জানান তিনি।

মেলান্দহ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) রেজাউল ইসলাম খান বলেন, গ্রাহকদের টাকা আত্মসাতের অভিযোগে ব্যাংক কর্মকর্তা মাসুদুর রহমানের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। সোমবার রাতেই তাকে গ্রেফতার করে জেলহাজতে পাঠানো হবে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে