জাবি উপাচার্যকে আবারও কালো পতাকা প্রদর্শন

0
332

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ফারজানা ইসলামকে ‘দুর্নীতিবাজ’ অ্যাখ্যা দিয়ে ফের কালো পতাকা প্রদর্শন করেছেন আন্দোলনকারী শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। এ সময় তারা উপাচার্যকে ভর্তি পরীক্ষার বিভিন্ন হলে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করে তার পদত্যাগের দাবি জানান।

সোমবার দুপুরে ‘দুর্নীতির বিরুদ্ধে জাহাঙ্গীরনগর’ ব্যানারে বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান অনুষদে এ কর্মসূচি পালন করেন তারা। বিশ্ববিদ্যালয়ের উন্নয়ন প্রকল্প থেকে ছাত্রলীগকে দুই কোটি টাকা ঘুষ দেওয়ার অভিযোগ তুলে আগামী ১ অক্টোবরের মধ্যে উপাচার্যকে স্বেচ্ছায় পদত্যাগের আহ্বান জানিয়েছেন তারা।

এদিকে, আন্দোলনকারীদের ঘোষণা উপেক্ষা করে রোববার ভর্তি পরীক্ষাকেন্দ্র পরিদর্শন করেন উপাচার্য। তবে আন্দোলনকারীদের সঙ্গে সম্ভাব্য ‘ঝামেলা’ এড়াতে উপাচার্য কাউকে না জানিয়ে পরীক্ষাকেন্দ্র পরিদর্শন করেছেন বলে দাবি করছেন আন্দোলনের অন্যতম মুখপাত্র আশিকুর রহমান।

আন্দোলনকারী দর্শন বিভাগের অধ্যাপক আনোয়ারুল্লাহ ভূঁইয়া বলেন, ‘জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য যে অবস্থান নিয়েছেন, তা সারাদেশের শিক্ষা ব্যবস্থাকে প্রশ্নবিদ্ধ করেছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক হিসেবে আমরা লজ্জিত। আমরা দেখেছি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য তার পেটোয়া বাহিনী দিয়ে শিক্ষার্থীদের ওপর ন্যক্কারজনক হামলা চালিয়েছে। এই বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যও চেয়েছিলেন আমরা ভর্তি পরীক্ষা পণ্ড করি। কিন্তু কোমলমতি ভর্তিচ্ছুদের কোনো ক্ষতি আমরা করব না।’

উপাচার্যের উদ্দেশে তিনি আরও বলেন, ‘ভর্তি পরীক্ষা চলছে বলে আমরা নমনীয় কর্মসূচি পালন করছি। আমাদের নমনীয়তাকে দুর্বলতা ভাববেন না। ১ অক্টোবরের মধ্যে আপনি সসম্মানে পদত্যাগ না করলে বিশ্ববিদ্যালয়ের অচলাবস্থার দায় নিয়ে পদত্যাগ করতে বাধ্য হবেন।’

সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ জাবি শাখার যুগ্ম আহ্বায়ক জয়নাল আবেদীন শিশির বলেন, ‘শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা উপাচার্যকে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করেছে। এ ভয়ে লুকোচুরি করে পরীক্ষার হল পরিদর্শনে গেছেন। আর দুটো ছবি তুলে ঘোষণা করলেন, বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন ভালোভাবে চলছে। আমরা আপনাকে সাত দিনের আলটিমেটাম দিয়েছি। তিন দিন অতিবাহিত হওয়ার পরও আপনার অবস্থান পরিস্কার না করে ধৃষ্টতা প্রদর্শন করেছেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের সচেতন শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা এর উচিত জবাব দেবেন।’

এ সময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক সোহেল রানা, নৃবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক সাঈদ ফেরদৌস, অধ্যাপক মির্জা তাসলিমা সুলতানা, দর্শন বিভাগের অধ্যাপক রায়হান রাইন, অধ্যাপক কামরুল আহসান, পরিবেশ বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক জামাল উদ্দিন রুনু, বাংলা বিভাগের অধ্যাপক শামীমা সুলতানা, সহযোগী অধ্যাপক নাজমুল হাসান তালুকদার, অধ্যাপক তারেক রেজা প্রমুখ।

এ ছাড়া জাহাঙ্গীরনগর সাংস্কৃতিক জোট, ছাত্র ইউনিয়ন, সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্ট, বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ জাবি শাখার নেতাকর্মীরা এতে অংশগ্রহণ করেন।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে