জাবির উপাচার্য প্যানেল নির্বাচনে জয়ী অধ্যাপক আমির, নূরুল ও অজিত

0
15
নির্বাচনে সাবেক উপ-উপাচার্য অধ্যাপক আমির হোসেন প্রথম, বর্তমান উপাচার্য অধ্যাপক নূরুল আলম দ্বিতীয় এবং গাণিতিক ও পদার্থবিষয়ক অনুষদের ডিন অধ্যাপক অজিত কুমার মজুমদার তৃতীয় হয়েছেন।

দীর্ঘ ৮ বছর পর জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে (জাবি) উপাচার্য প্যানেল নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। আজ শুক্রবার সন্ধ্যা ৬টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেট হলে এ নির্বাচন হয়। নির্বাচন শেষে রাত ৮টায় ফলাফল ঘোষণা করেন সিনেটের সচিব ও রিটার্নিং অফিসার রেজিস্ট্রার রহিমা কানিজ।

তিনি বলেন, উপাচার্য প্যানেল নির্বাচনে ৮ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। নির্বাচনে সাবেক উপ-উপাচার্য অধ্যাপক আমির হোসেন সর্বোচ্চ ৪৮ ভোট পেয়ে প্রথম হয়েছেন। এছাড়া বর্তমান উপাচার্য অধ্যাপক নূরুল আলম ৪৬ ভোট পেয়ে দ্বিতীয় এবং গাণিতিক ও পদার্থবিষয়ক অনুষদের ডিন অধ্যাপক অজিত কুমার মজুমদার ৩২ ভোট পেয়ে তৃতীয় হয়েছেন।

বিশ্ববিদ্যালয় আইন অনুযায়ী, এই ৩ জনের মধ্য থেকে একজনকে উপাচার্য হিসেবে নিয়োগ দেবেন রাষ্ট্রপতি তথা আচার্য।

নির্বাচনে অধ্যাপক সুফি মুস্তাফিজুর রহমান ২৩টি, আব্দুল্লাহ হেল কাফি ২০টি, লায়েক সাজ্জাদ এন্দেল্লাহ ১৯টি, অধ্যাপক পৃথ্বিলা নাজনীন নীলিমা ১৫টি ও তপন কুমার সাহা ৭টি ভোট পেয়েছেন। এই নির্বাচনে বিশ্ববিদ্যালয়ের মোট ৮২জন সিনেটরের মধ্যে ৭৬জন ভোট প্রদান করেন বলেও জানান তিনি।

উপাচার্য প্যানেল নির্বাচন ঘিরে শিক্ষক রাজনীতিতে বিভিন্ন মেরুকরণ শেষে আওয়ামীপন্থী শিক্ষকদের তিনটি প্যানেল ঘোষণা করা হয়। এরই মধ্যে আওয়ামী লীগপন্থী শিক্ষকদের সংগঠন ‘বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজ’ থেকে একজন এবং ‘বঙ্গবন্ধু শিক্ষক পরিষদ’র দুটি প্যানেল থেকে তিনজন করে প্রার্থী ঘোষণা করা হয়। যদিও পরে সিনেটের শুরুতে অধ্যাপক মোতাহার হোসেন প্রার্থিতা প্রত্যাহার করেন।

নির্বাচন শেষে উপাচার্য অধ্যাপক নূরুল আলম বলেন, সুন্দরভাবে নির্বাচন সম্পন্ন হওয়ায় সবাইকে ধন্যবাদ। আর আজকেই আমরা শিক্ষা মন্ত্রালয়ের মাধ্যমে রাষ্ট্রপতি ও আচার্যের কাছে উপাচার্য প্যানেল পাঠাব। আশা করি দ্রুতই বিশ্ববিদ্যালয়ের নতুন উপাচার্য নিয়োগ হবে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.