জাতীয় লিগে থাকছেন তারকারা

0
187
ছবি: ফাইল

লম্বা বিরতি শেষে মাঠে নামার প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছেন তামিম ইকবাল। তারকা এ ওপেনার জাতীয় ক্রিকেট লিগ (এনসিএল) দিয়ে ক্রিকেটে ফিরতে মনস্থির করেছেন। আফগানিস্তানের বিপক্ষে ত্রিদেশীয় টি-২০ সিরিজের ফাইনাল বৃষ্টিতে পরিত্যক্ত হওয়ার পর গণমাধ্যমে মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ জানিয়েছেন, জাতীয় লিগ দিয়ে তারা ভারত সফরের প্রস্তুতি নেবেন। কে কোন দলের হয়ে জাতীয় লিগ খেলবেন, সেটা নাকি বৃষ্টির সময় ড্রেসিংরুমে বসে আলোচনাও করেছেন। বলা যায়, সিপিএল খেলতে যাওয়া সাকিব আল হাসান ও লিটন দাস বাদে জাতীয় দলের প্রায় সবাই এবার জাতীয় লিগে খেলবেন।

৫ অক্টোবর থেকে শুরু হওয়ার কথা জাতীয় লিগের ২১তম আসর। সামনে ভারত সফর থাকায় বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডও (বিসিবি) জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের জাতীয় লিগে অংশগ্রহণ অনেকটা বাধ্যতামূলক করেছে। ৩ নভেম্বর টি২০ দিয়ে শুরু হবে টাইগারদের ভারত সফর। ১৪ নভেম্বর থেকে শুরু হবে টেস্ট সিরিজ। ১৫ অক্টোবর বাংলাদেশ দল এই সফরের প্রস্তুতি ক্যাম্প শুরু করবে। বিসিবি চাইছে, ভারত সফরের ক্যাম্পে শুরুর আগে জাতীয় দলের ক্রিকেটাররা যেন অন্ততপক্ষে জাতীয় লিগের দুটি রাউন্ড খেলেন।

সে অনুযায়ী বিভাগীয় দলগুলোর স্কোয়াড তৈরি করা হচ্ছে বলে জানা গেছে। সিপিএলে গেলেও সাকিবের নাম আছে খুলনার ৩০ জনের স্কোয়াডে। আছেন দুই বছর আগে সর্বশেষ জাতীয় লিগ খেলা মাশরাফি বিন মুর্তজাও। তবে সাকিব সিপিএল থেকে সরাসরি ভারতের সফরের প্রস্তুতি ক্যাম্পে যোগ দেবেন। মাশরাফিরও খেলার সম্ভবনা নেই। এ ছাড়া খুলনা বিভাগের প্রাথমিক স্কোয়াডে সৌম্য সরকার, মোহাম্মদ মিঠুন, মুস্তাফিজুর রহমান, মেহেদী হাসান মিরাজ, রুবেল হোসেনসহ তারকাদের প্রায় সবাই আছেন। মুশফিক-মাহমুদুল্লাহরাও নিজ বিভাগের হয়ে খেলবেন।

বিসিবি চাইলেও জাতীয় দলের সব তারকাকে জাতীয় লিগে পাবে না। ‘এ’ দলের হয়ে শ্রীলংকা সফরে রয়েছেন টেস্ট দলের মুমিনুল হক, মেহেদি হাসান মিরাজ, সৌম্য সরকার ও সাদমান ইসলাম। এছাড়া বিজয়, জহুরুল, নুরুল হাসান, আবু জায়েদ, সানজামুল, নাজমুল হোসেনরা রয়েছেন শ্রীলংকা সফরে। শ্রীলংকায় তারা দুটি চার দিনের ম্যাচ ও তিনটি একদিনের ম্যাচ খেলবেন। ১৩ অক্টোবর তাদের শ্রীলংকা সফর শেষ হবে। জাতীয় লিগের শুরুতে তাই তাদের পাওয়া যাবে না।

ওদিকে ভারত সফরে থাকা অনূর্ধ্ব-২৩ দলের সাইফ হাসান, মাহিদুল ইসলাম, ইয়াসির আলীদের জাতীয় লীগের চার-পাঁচ রাউন্ডে পাওয়া যাবে না। তাদের ২৮ অক্টোবর পর্যন্ত ম্যাচ রয়েছে। এবারের জাতীয় লীগে ক্রিকেটারদের ফিটনেসের ওপর বেশ জোর দেওয়া হচ্ছে। বিপ টেস্টে ১১ না পেলে নাকি জাতীয় লীগের স্কোয়াডে রাখা হবে না!

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে