জন্মদিনের বিকেলে আইয়ুব বাচ্চুর নতুন গান

0
819
আইয়ুব বাচ্চু, আসিফ ও পান্থ কানাইয়ের মিশ্র অ্যালবাম ‘ফিসফাসফিস’-এর জন্যই গানটি রেকর্ড করা হয়েছিল ‘ভাব সূত্র’ গানটি

শিরোনাম দেখে একটু খটকা লাগারই কথা। নিজের অনেক সৃষ্টি রেখে গেলেও প্রয়াতের পক্ষে নতুন কিছু তৈরি করা সম্ভব নয়। তবে আজ শুক্রবার ছুটির দিনে এমনটাই ঘটেছে। প্রকাশিত হয়েছে আইয়ুব বাচ্চুর নতুন গান ‘ভাবসূত্র’।

‘কিছুটা লুকোচুরি, কিছুটা অভিমান/কিছুটা থাকে অভিনয়/কিছুটা কাছে পাওয়া/কিছুটা দূরে হাওয়া/কিছুটা হারাবার ভয়/এই সব নিয়েইতো মানুষে মানুষে চিরকালই ভাব হয়…’ এমন কথা দিয়ে শুরু হয় ‘ভাবসূত্র’ গানটি। গানের কথা লিখেছেন মারজুক রাসেল। সুর-সংগীতায়োজন করেছিলেন আইয়ুব বাচ্চু নিজেই। এটির রি-মাস্টারিং করেছেন আনিসুজ্জামান আনিস।

প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান সাউন্ডটেকের কর্ণধার সুলতান মাহমুদ বাবুল  বলেন, ‘২০০৫-এ “ফিসফাসফিস” শিরোনামের একটি অ্যালবাম করা হয়েছিল। সে অ্যালবামের জন্যই গানটি তৈরি হয়। সেদিন হঠাৎ মারজুক রাসেল আমাকে বিষয়টি মনে করিয়ে দেন। এরপর খোঁজাখুঁজি করে এটি বের করেছি। নতুনভাবে মাস্টারিংও করতে হয়েছে।’ তিনি আরও জানান, আমাদের সবার প্রিয় শিল্পীর নতুন ভিডিও পাওয়া অসম্ভব। তাই চিত্র স্বল্পতার কারণে ভিডিও তৈরি করা সম্ভব হয়নি, একটি স্থির ছবির সঙ্গে গানের কথা দিয়ে ভিডিও হিসেবে এটি এসেছে।

আইয়ুব বাচ্চু (১৬ আগস্ট ১৯৬২-১৮ অক্টোবর ২০১৮)।

অ্যালবামটি প্রসঙ্গে কথা হয় গীতিকবি মারজুক রাসেলের সঙ্গে। তিনি বলেন, আইয়ুব বাচ্চু, আসিফ ও পান্থ কানাইয়ের মিশ্র অ্যালবামের জন্যই গানটি রেকর্ড করা হয়েছিল। ২০০৫-এর ১০ জানুয়ারি ১১টা গান নিয়ে অ্যালবামটি বাজারে আসে। একটা গান থেকে যায়; ‘ভাব সূত্র’ শিরোনামের অপ্রকাশিত গানটার সুর-সংগীত-কণ্ঠ বাচ্চু ভাইয়ের নিজেরই। সেবার অ্যালবাম প্রকাশের পর দিন-মাস-বছর যায়, আনরিলিজ গানটার কথা সংশ্লিষ্ট সবাই ভুলে যাই। কবিতা-গানের চেয়ে ভিজ্যুয়াল মিডিয়ায় বেশি জড়িয়ে যাই আমি। তাই আমিও গানটার কথা ভুলে যেতাম। আবার মাঝে মাঝে মনে পড়ত। এইরকম ‘ভোলা’-‘মনে পড়া’ চলতে-চলতেই বাচ্চু ভাই যেদিন চলে গেলেন, সেদিন থেকে তাঁর সঙ্গে গান নিয়ে কাটানো অম্লমধুর অনেক স্মৃতি মনে পড়তে থাকে। ‘ভাবসূত্র’ গানটার কথা যতক্ষণ সজাগ থাকতাম ততক্ষণ মনে হতে থাকল। একদিন সাউন্ডটেকের বাবুল ভাইয়ের সঙ্গে যোগাযোগ করে গানটার কথা জানালাম। উনি কয়েক দিন সময় নিয়ে প্রায় ১৪ বছর আগের মূল কপি খুঁজে বের করলেন। একসময় অনেক ফাঙ্গাস পড়ে যাওয়া প্রায়-বাতিল হয়ে যাওয়া রেকর্ড থেকে ফাঙ্গাসমুক্ত করে গানটার এডিট ও রি-মাস্টারিং করে দিলেন আনিসুজ্জামান আনিস।

আজ বিকেল ৪টায় ইউটিউবে প্রকাশের পর গানটি বেশ সাড়া ফেলেছে শ্রোতাদের মাঝে।

ব্যান্ডদল এলআরবির দলনেতা আইয়ুব বাচ্চু ছিলেন একাধারে গায়ক, গিটারিস্ট, গীতিকার, সুরকার ও সংগীত পরিচালক। গিটারের জাদুকর হিসেবে আলাদা সুনাম ছিল তাঁর। ভক্তদের কাছে তিনি ‘এবি’ নামেও পরিচিত। ২০১৮ সালের ১৮ অক্টোবর সকালে মারা যান ‘গিটারের জাদুকর’ খ্যাত আইয়ুব বাচ্চু।

১৯৬২ সালের এই দিনে (১৬ আগস্ট) চট্টগ্রামে জন্মগ্রহণ করেন আইয়ুব বাচ্চু। ১৯৭৮ সালে ফিলিংস ব্যান্ডের মাধ্যমে সংগীত জগতে তার পথচলা শুরু হয়। ১৯৮০ থেকে ১৯৯০ সাল পর্যন্ত সোলস ব্যান্ডে লিড গিটারিস্ট হিসেবে যুক্ত ছিলেন তিনি। ১৯৯১ সালে এলআরবি ব্যান্ড গঠন করেন আইয়ুব বাচ্চু।

মূলত রক ঘরানার গান করতেন। শ্রোতাদের কাছে ইংরেজি গান, হার্ড রক, ব্লুজ, অলটারনেটিভ রক নিয়ে গেছেন শুরু থেকে। ব্যান্ড সংগীতের প্রতি তারুণ্যের জোয়ারের ধারা ধরে রেখেছিলেন আইয়ুব বাচ্চু। কিন্তু শুধু রক বা ব্যান্ডের গানে সীমাবদ্ধ ছিলেন না। আধুনিক গান, লোকগীতি দিয়েও শ্রোতাদের মুগ্ধ করেছেন তিনি। লোকগান নিয়ে একটি অ্যালবাম রিমেক করেছেন তিনি এবং সেখানে শ্রোতাদের প্রচুর সাড়া মিলেছে। খুব অল্প গান করেছিলেন চলচ্চিত্রে। কিন্তু সেই অল্প কটি গানই তুমুল জনপ্রিয়তা পায়।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.