ছদ্মবেশে দুদকের অভিযান, দুই আনসার বদলি

0
191
জনশক্তি কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরোর ঢাকা জেলা কর্মসংস্থান অফিসে ছদ্মবেশে অভিযান চালিয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) একটি দল।

বিদেশ গমনেচ্ছু শ্রমিকদের ফিঙ্গারপ্রিন্ট নেওয়ার সময় অবৈধভাবে অর্থ আদায় ও হয়রানির অভিযোগ পেয়ে জনশক্তি কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরোর ঢাকা জেলা কর্মসংস্থান অফিসে অভিযান চালিয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। অভিযানে অনিয়মের প্রমাণ পেয়ে দুদকের সুপারিশের পরিপ্রেক্ষিতে দুই আনসার সদস্যকে বদলি করা হয়েছে।

দুদকের উপপরিচালক (জনসংযোগ) প্রণব কুমার ভট্টাচার্য অভিযানের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, সংস্থার সহকারী পরিচালক জেসমিন আক্তারের নেতৃত্বে একটি দল ছদ্মবেশে অভিযান চালিয়ে বেশ কিছু অনিয়মের প্রাথমিক প্রমাণ পায়।

দুদক বলেছে, অভিযানের সময় উপস্থিত আনসার সদস্য এবং কিছু দালাল শ্রমিকদের সরলতার সুযোগে সেবা দেওয়ার বিভিন্ন স্তরে তাঁদের কাছ থেকে টাকা নিচ্ছেন বলে প্রমাণ পায়। দলটি জানতে পারে, ফিঙ্গারপ্রিন্টের ফরম বিনা মূল্যে দেওয়ার কথা থাকলেও সেগুলো দালাল ও আনসার সদস্যরা ১০০ টাকার বিনিময়ে বিক্রি করেন। এ ছাড়া টাকার বিনিময়ে ফিঙ্গারপ্রিন্টের সিরিয়াল এগিয়ে দেওয়ার প্রমাণও পায় দলটি।

দুদকের দলটি তাদের চিহ্নিত অনিয়মগুলোর বিষয়ে জনশক্তি কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরোর ঢাকা অফিসের সহকারী পরিচালক জান্নাতুল ফিরদাউসের সঙ্গে কথা বলে। তাৎক্ষণিকভাবে দুজন আনসার সদস্যকে বদলি করা হয়। এ ছাড়া দালালদের দৌরাত্ম্য বন্ধে ওই অফিসের আশপাশের ফরম বিক্রির দোকানগুলো বন্ধের জন্য মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করার সুপারিশ করে দুদক দল।

খুলনায় ‘জমি আছে, ঘর নাই’ প্রকল্পে নাম তোলার কথা বলে অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে আরেকটি অভিযান চালিয়েছে দুদক। দিঘলিয়া উপজেলার যোগী‌পোল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারমানের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে খুলনা সমন্বিত জেলা কার্যালয় থেকে ওই অভিযান পরিচালিত হয়। অভিযানে ওই প্রকল্পের বিষয়ে অধিকতর তথ্য সংগ্রহ করে প্রাথমিক প্রতিবেদন উপস্থাপন করেছে অভিযান পরিচালনাকারী দল। পাওয়া তথ্য বিশ্লেষণে ঘর নির্মাণে মন্ত্রণালয়ের ডিজাইন অনুসরণ না করা, নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহার, দালানঘর আছে এমন ব্যক্তিকে প্রকল্পের ঘর দেওয়া এবং অনেকের কাছ থে‌কে ঘরপ্রতি ১০ হাজার টাকা ক‌রে নিয়ে ঘর বরাদ্দ না দেওয়ার প্রাথমিক প্রমাণ পায় দুদক দলটি। এ বিষয়ে অনুসন্ধানের সুপারিশ করে কমিশনে পূর্ণাঙ্গ প্রতিবেদন উপস্থাপন করবে অভিযান পরিচালনাকারী দল।

এ ছাড়া রাস্তায় ড্রেন নির্মাণে নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহারের অভিযোগ এবং গোপালগঞ্জ সদর হাসপাতালে ও টুঙ্গিপাড়া সরকারি হাসপাতালে রোগীদের হয়রানির অভিযোগে তিনটি আলাদা অভিযান চালানো হয়েছে বলে দুদক জানিয়েছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে