ছদ্মবেশে ঘুষখোর ভূমি কর্মকর্তাকে ধরলেন জেলা প্রশাসক

0
203
বরখাস্ত মোকলেস আলী

ভুক্তভোগীর বড় ভাই সেজে সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক এস এম মোস্তফা কামাল এক ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তার ঘুষ চাওয়ার প্রমাণ পেয়ে তাৎক্ষণিকভাবে তাকে সাময়িক বরখাস্তের নির্দেশ দিয়েছেন। বৃহস্পতিবার বিকেলে তাকে বরখাস্তের নির্দেশ দেন জেলা প্রশাসক।

সাময়িক বরখাস্ত মোকলেস আলী সাতক্ষীরা সদর উপজেলার ধুলিহর ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা। ওই ভুক্তভোগী জানান, তিনি ও তার বাবা বৃহস্পতিবার দুপুরে ধুলিহর ইউনিয়ন ভূমি অফিসে জমির মিউটেশন করতে যান। এ জন্য নির্ধারিত ফি এক হাজার ১৭০ টাকা হলেও তাদের কাছে পাঁচ হাজার টাকা ঘুষ চাওয়া হয়। অনেক দেনদরবার করলেও পাঁচ হাজারের এক টাকা কম হলেও কাজ হবে না বলে তাদের জানিয়ে দেন ওই ভূমি কর্মকর্তা এবং জুয়েল নামে এক দালালকে দেখিয়ে দেন তিনি।

এ সময় ওই ভুক্তভোগী সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক এস এম মোস্তফা কামালের কাছে মোবাইলে ফোন করে ঘুষ চাওয়ার বিষয়টি জানান। জেলা প্রশাসক তাকে তার বড় ভাই পরিচয়ে ওই কর্মকর্তার সঙ্গে কথা বলিয়ে দিতে বলেন।

এ সময় ওই ভুক্তভোগী ধুলিহর ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা মোকলেস আলীর কাছে নিজের ফোনটি দিয়ে বলেন, আমার বড় ভাই আপনার সঙ্গে একটু কথা বলবেন। এ সময় জেলা প্রশাসক নিজেকে ওই ভুক্তভোগীর বড় ভাই পরিচয় দিয়ে বলেন, ভাই চার হাজার টাকা নেন, আমরা গরিব মানুষ কাজটি করে দেন। উত্তরে ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা মোকলেস আলী বলেন, ঠিক আছে দেখব। এর পরপরই সেখানে সদর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. আসাদুজ্জামানকে পাঠিয়ে দেন জেলা প্রশাসক।

সেখানে গিয়ে ঘটনার সত্যতা পাওয়ায় এবং ভূমি অফিসে বিভিন্ন কাজে আসা মানুষের সঙ্গে কথা বলে নিয়মিত ঘুষ নেওয়ার বিষয়টি সম্পর্কে নিশ্চিত হন তিনি। এর পরপরই বিকেলে মোকলেস আলীকে সাময়িক বরখাস্তের আদেশ দেন জেলা প্রশাসক।

জেলা প্রশাসক এস এম মোস্তফা কামাল বলেন, গত ১৩ অক্টোবর সাতক্ষীরা রাজস্ব প্রশাসনের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের শপথ বাক্য পাঠ করিয়ে জেলা প্রশাসনকে দুর্নীতিমুক্ত ঘোষণা করা হয়। কিন্তু ওই ভূমি কর্মকর্তা শপথ বাক্য পাঠের পরও মানুষকে নানাভাবে হয়রানি করছে এবং ঘুষ দাবি করে। প্রাথমিকভাবে অভিযোগের সত্যতা পাওয়ায় তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে