চিকু’র কাছে ৩১ বছরের কোহলির খোলা চিঠি

0
278
জন্মদিনে জীবনসঙ্গী আনুশকা শর্মার সঙ্গে কোহলি। ছবি: বিরাট কোহলির টুইটার পেজ

আজ ৩১ বছরে পা রাখলেন বিরাট কোহলি। জন্মদিন উপলক্ষে নিজের কৈশোর জীবনের প্রতি একটি চিঠি লিখেছেন বর্তমান বিশ্বের অন্যতম সেরা এ ব্যাটসম্যান

বাংলাদেশের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজে নেই বিরাট কোহলি। বিশ্রামে রয়েছেন ভারত-অধিনায়ক। অবসরের মধ্যেই আজকের দিনটি কোহলির জন্য বিশেষ উপলক্ষ। আজ ৩১ বছর বয়সে পা রাখলেন বর্তমান বিশ্বের অন্যতম সেরা এ ব্যাটসম্যান। জন্মদিনে দুনিয়ার নানা প্রান্ত থেকে শুভেচ্ছা পাচ্ছেন কোহলি। ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ কর্তৃপক্ষ টুইট করে শুভেচ্ছা জানিয়েছে। সাদিও মানে, রায়ান গিগস, রিয়াদ মাহরেজ, বের্নাদো সিলভাদের মতো ফুটবলারদের শুভেচ্ছাবার্তাও পেয়েছেন কোহলি। তবে এবার তাঁর জন্মদিনে সেরা উপহারটি কোহলি নিজেই দিয়েছেন নিজেকে!

আজ সকালে নিজের ভেরিফাইড অ্যাকাউন্ট থেকে একটি টুইট করেন কোহলি। একটি চিঠির দুটি ছবি যুক্ত করা সে টুইটে। চিঠিটি কোহলি নিজেকেই লিখেছেন। যখন তিনি ১৫ বছরের কিশোর, সবাই ডাকত ‘চিকু’ নামে—সেই কিশোরের কাছেই কোহলি লিখেছেন তাঁর খোলা চিঠি। আর টুইটের ক্যাপশনে লিখেছেন, ‘১৫ বছর বয়সী আমাকে নিজের জীবনযাত্রা এবং জীবন থেকে পাওয়া শিক্ষার ব্যাখ্যা। লিখতে আমি সর্বোচ্চ চেষ্টাই করেছি। পড়ে দেখতে পারেন।’

কোহলির চিঠি হুবহু তুলে ধরা হলো পাঠকদের জন্য

‘কেমন আছ চিকু। সবার আগে শুভ জন্মদিন। আমি জানি নিজের ভবিষ্যৎ নিয়ে তোমার অনেক প্রশ্ন আছে আমার কাছে। খুব বেশি প্রশ্নের জবাব দিতে পারব না বলে দুঃখিত। কারণ আমরা জানি না বলেই দোকানের মিষ্টিগুলো বিস্ময়কর হয়, প্রতিটি চ্যালেঞ্জ রোমাঞ্চকর এবং প্রতিটি হতাশা শেখার সুযোগ। তুমি এখন এসব বুঝবে না। তবে জীবনে লক্ষ্যের চেয়ে তা কীভাবে কাটাচ্ছ সেটি বেশি গুরুত্বপূর্ণ। এখন পর্যন্ত তা দুর্দান্তই কাটছে।

জেনে রাখ, জীবন তোমার জন্য বড় উপহারই রেখে দিয়েছে। কিন্তু এ জন্য তোমার প্রতিটি সুযোগ কাজে লাগানোর প্রস্তুতি থাকতে হবে। সুযোগ লুফে নাও তবে যেসব জিনিস তুমি পাবেই তার জন্য চেষ্টা করো না। ব্যর্থ হবে। সবাই তাই হয়। শুধু ওয়াদা করো, বড় হবে। আর সে চেষ্টায় শুরুতে না পারলে আবার চেষ্টা করো।

অনেকে তোমাকে পছন্দ করবে, অপছন্দও করবে। এর মধ্যে অনেকেই তোমাকে জানে না। তাদের নিয়ে ভেবো না, শুধু নিজের ওপর বিশ্বাস রাখ।

বাবা আজ জুতো উপহার না দেওয়ায় তোমার মনের অবস্থাটা আমি জানি। কিন্তু আজ সকালে তার আদর এবং তোমার উচ্চতা নিয়ে করা মজার কাছে এসব কিছুই না। এগুলো মনে রাখ। আমি জানি কিছু সময় সে বেশ কঠোর।কারণ সে তোমার ভেতর থেকে সেরাটা বের করে আনতে চায়। তোমার মনে হতে পারে এমন কিছু সময় আছে যখন বাবা-মা আমাদের বুঝতে পারে না। কিন্তু মনে রেখ—শুধু পরিবারই নিঃশর্তভাবে ভালোবাসে। তাদের ভালোবাসা ফিরিয়ে দাও। সম্মান করো এবং যখনই সময় পাও তাদের সঙ্গে থাকো। বাবাকে বলো, তুমি তাকে অনেক ভালোবাসো। আজই বলো, আগামীকাল বলো, যত বেশি সম্ভব বলো।

শেষ কথায়, শুধু নিজের হৃদয়ের দাবি রাখো। স্বপ্নকে তাড়া করো। দয়ালু হও এবং বিশ্বকে দেখিয়ে দাও বড় স্বপ্ন দেখা কীভাবে পার্থক্য গড়ে দেয়। নিজের মতো হও।

চিঠিটি নিজের টুইটার অ্যাকাউন্টে পোস্ট করেন কোহলি। ছবি: বিরাট কোহলির টুইটার পেজ

আর হ্যাঁ, পরোটা যত পারো খেয়ে নাও। সামনের দিনগুলোয় এসব তোমার জন্য বিলাসিতা হয়ে উঠবে।’

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে