চলন্ত বাসে নারীকে ধর্ষণের চেষ্টা, গ্রেপ্তার ২

0
296
ধর্ষণ।

চট্টগ্রাম নগরে চলন্ত বাসে এক গৃহবধূকে ধর্ষণের চেষ্টার ঘটনা ঘটেছে। তাঁর চিৎকারে বাসের পেছনে থাকা একটি গরু বোঝাই ট্রাকের চালক বাসটির গতিরোধ করেন। এরপর স্থানীয় লোকজন বাসের চালক ও চালক সহকারীকে আটক করে পুলিশের হাতে তুলে দেন।

শনিবার মধ্যরাতে নগরের শহীদ সাইফুদ্দিন খালেদ সড়কের চট্টগ্রাম ক্লাবের সামনে এই ঘটনা ঘটে। এই ঘটনায় গ্রেপ্তার দুজন হলেন বাসচালক রবিউল আউয়াল (২২) ও তাঁর সহকারী মো.হৃদয় (২৪)।

কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ মহসীন বলেন, ঘটনার শিকার ওই গৃহবধূ স্বামীর সঙ্গে চট্টগ্রাম নগরের বাকলিয়া থানা এলাকায় ভাড়া বাসায় থাকেন। তাঁর বাবার বাড়ি আনোয়ারা উপজেলায় এবং শ্বশুর বাড়ি কক্সবাজারের উখিয়া উপজেলায়।

গৃহবধূ মামলার এজাহারে অভিযোগ করেছেন, শনিবার রাত ১১টার দিকে বাবার বাড়ি আনোয়ারা উপজেলা থেকে তিনি শাহ আমানত সেতু এলাকায় পৌঁছান। কিন্তু বাসার চাবি বাবার বাড়িতে ফেলে আসায় তিনি নগরের দেওয়ানহাটে চাচাতো বোনের বাসায় যাওয়ার উদ্দেশে বহদ্দারহাটের এক নম্বর রুটের বাসে ওঠেন। বাসটি জিইসি মোড়ে যাওয়ার পর অন্যান্য যাত্রীরা নেমে যান। এ সময় রবিউল ও হৃদয় গৃহবধূকে দেওয়ানহাট মোড়ে নামিয়ে দেওয়ার আশ্বাস দিয়ে বাস চালানো শুরু করেন। কিন্তু বাসটি লালখান বাজার মোড়ে যাওয়ার পর দেওয়ানহাটের দিকে না গিয়ে গতিপথ বদলে কাজীর দেউড়ির দিকে যাওয়া শুরু করে। গৃহবধূ তাদের অসৎ উদ্দেশ্য বুঝতে পেরে তাঁকে নামিয়ে দেওয়ার জন্য বলেন।

গৃহবধূর অভিযোগ, তাঁর কথা না শুনে দ্রুতগতিতে বাসটি চালিয়ে কাজীর দেউড়ির দিকে নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল। চট্টগ্রাম ক্লাবের সামনে যাওয়ার পর হৃদয় তাঁকে ধর্ষণের চেষ্টা করেন। এ সময় তিনি চিৎকার করেন এবং জানালা দিয়ে লাফ দেওয়ার চেষ্টা করেন। তাঁর চিৎকারে বাসটির পেছনে থাকা গরুবাহী একটি ট্রাকের লোকজন তা বুঝতে পেরে বাসটিকে ধাওয়া করতে শুরু করে। বাসটি কাজীর দেউড়ি মোড়ে পৌঁছালে গরুবাহী ট্রাকটির চালক বাসটির সামনে গিয়ে পথরোধ করেন।

স্থানীয় বাসিন্দা আনোয়ার সাংবাদিকদের বলেন, বাসের সামনে ট্রাকটি গতিরোধ করে রাখলে তাঁরা এগিয়ে যান। তখন গরুর ট্রাকে থাকা লোকজন বলেন, গাড়ির মেয়েটি বাঁচাও বাঁচাও বলে চিৎকার করছিলেন। শুনতে পেয়ে তাঁরা বাসটিকে ধাওয়া করেছেন। এ সময় বাসের চালক ও সহকারীকে আটক করেন স্থানীয় লোকজন। পরে দুজনকে পুলিশে সোপর্দ করেন।

কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মহসীন বলেন, বাসের পেছনে ছিল গরু বোঝাই একটি ট্রাক। ট্রাকের চালক চিৎকার শুনে দ্রুত ট্রাকটিকে বাসের সামনে নিয়ে গতিরোধ করেন। এ সময় গৃহবধূ দ্রুত বাস থেকে লাফিয়ে রাস্তায় পড়েন। তখন স্থানীয় লোকজন জড়ো হয়ে বাসের চালক ও সহকারীকে ধরে ফেলেন। এর মধ্যে টহল পুলিশও ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়। দুজনকে গ্রেপ্তার করে থানায় আনা হয়। সোমবার দুজনকে আদালতে নেওয়া হবে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.