গুলশান-বনানীর জন্য নতুন বাসসেবা ‘গুলশান চাকা’

0
279
প্রতীকী ছবি।

‘ঢাকা চাকা’র পর গুলশান–বনানী এলাকার জন্য ‘গুলশান চাকা’ নামের শীতাতপনিয়ন্ত্রিত আরেকটি চক্রাকার বাসসেবা চালু হয়েছে। এই বাস নতুন বাজার থেকে গুলশান ২ নম্বর গোলচত্বর হয়ে বনানী–কাকলী রুটে চলাচল করছে। নতুন এই সেবা চালু হওয়ায় বাসের জন্য যাত্রীদের অপেক্ষার কষ্ট কমেছে। তবে বাসের ভাড়া নিয়ে যাত্রীদের মধ্যে অসন্তোষ আছে।

গত ২৮ জুলাই থেকে গুলশান চাকা নামের নতুন এই বাসসেবা চালু করেছে হিমাচল পরিবহন। ঢাকা মহানগর আঞ্চলিক পরিবহন কমিটি (মেট্রো আরটিসি) এই বাস চলাচলের অনুমতি দেয়। গুলশান চাকা বাস কাকলী–বনানী হয়ে গুলশান ২ নম্বরের মধ্য দিয়ে নতুন বাজার পর্যন্ত চলাচল করছে।

এর আগে ২০১৬ সালে ‘ঢাকা চাকা’ নামের শীতাতপনিয়ন্ত্রিত একটি বাসসেবা চালু হয়। তেজগাঁও-গুলশান লিঙ্ক রোডের গুলশান শুটিং ক্লাব, গুলশান ১ নম্বর হয়ে গুলশান ২ নম্বর থেকে নতুন বাজার ও বনানী রুটে পর্যন্ত এই বাস চলাচল করছে।

‘গুলশান চাকা লিমিটেড’–এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক আফতাব উদ্দিন বলেন, কাকলী থেকে নতুন বাজার পথে গুলশান চাকা বাস চলছে। কিছুদিন নতুন বাজার থেকে বাড্ডা-গুলশান লিংক রোড ও গুলশান ১ নম্বরে চলেছিল। তবে নিরাপত্তার কারণে এই গাড়িগুলো গুলশান এলাকার বাইরে চলাচল না করতে গুলশান সোসাইটির পক্ষ থেকে অনুরোধ করা হয়। এরপর সেই রুটের পারমিট বাতিল করা হয়েছে। তিনি জানান, ২০টি বাসের অনুমোদন দেওয়া আছে। বর্তমানে ১৮টির মতো চলছে। এ ছাড়া গুলশান ১ নম্বর পুলিশ প্লাজা হয়ে তেজগাঁও শিল্প এলাকার জিএমজি মোড় পর্যন্ত রুট পারমিট পাওয়া গেছে। এই রুটেও গাড়ি চলবে।

কচুক্ষেত এলাকায় বাসা গুলশান মডেল কলেজের শিক্ষক রাবেয়া চৌধুরীর। তিনি কাকলী থেকে গুলশান চাকা বাসে উঠে গুলশান ২ নম্বরে চলাচল করেন। তিনি বলেন, ‘গুলশান এলাকায় একটিমাত্র কোম্পানির গণপরিবহন চলত আগে। বাসের জন্য দীর্ঘক্ষণ লাইনে দাঁড়িয়ে থাকতে হতো। তবে নতুন বাসসেবা চালু হওয়ায় এই দাঁড়ানোর কষ্ট কমেছে। যখনই আসছি, একটি না একটি বাস পাচ্ছি।’

ঢাকায় বাস চলাচলের অনুমতি দেয় ঢাকা মেট্রো আরটিসি। এর সভাপতি ঢাকা মহানগর পুলিশের কমিশনার। এই কমিটিতে বিআরটিএ, ট্রাফিক পুলিশ, সিটি করপোরেশনসহ সরকারের বিভিন্ন সংস্থার কর্মকর্তা ছাড়াও পরিবহন মালিক-শ্রমিক সমিতির প্রতিনিধি রয়েছেন।

চালু হওয়ার পর কিছুদিন গুলশান চাকা বাসটি বাড্ডা লিংক রোড হয়ে গুলশান ১ নম্বর থেকে ২ নম্বর এবং ২ নম্বর থেকে বনানী পর্যন্ত চলাচল করেছে। তবে ঈদের আগেই তা বন্ধ হয়ে যায়। সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, সেই রুটে পারমিট না থাকায় বাস কেবল নতুন বাজার থেকে বনানী রুটে চলছে।

ঢাকা চাকার মতো গুলশান চাকার ভাড়াও বেশি বলে জানান যাত্রী জুনাইয়া তাবাসসুম। এক কিলোমিটার দূরত্বে যে ১৫ টাকা ভাড়া, আড়াই কিলোমিটারের ভাড়াও একই। তিনি নতুন বাজার থেকে গুলশান ২ নম্বরের ভাড়া ১০ টাকা হলে ঠিক হতো বলে মনে করেন।

ঢাকায় গ্রিন ঢাকা, ঢাকা চাকা ছাড়াও কয়েকটি শীতাতপনিয়ন্ত্রিত বাস চালু হয়েছে। ঢাকায় শীতাতপনিয়ন্ত্রণহীন বাসের জন্য সর্বনিম্ন ভাড়া নির্ধারণ করা হলেও শীতাতপনিয়ন্ত্রিত বাসের সর্বনিম্ন ভাড়া নির্ধারণ করা হয়নি।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে