খুনিদের ধিক্কার ও ফাঁসির দাবি জানিয়ে চট্টগ্রামে শোকাবহ ২১ আগস্ট পালন

0
342
চট্টগ্রাম নাগরিক উদ্যোগের আয়োজনে ২১ আগস্টের কর্মসূচিতে যোগ দেন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন।

খুনিদের প্রতি ধিক্কার এবং তাদের ফাঁসির দাবি জানিয়ে চট্টগ্রামে শোকাবহ ২১ আগস্ট পালন করেছে আওয়ামী লীগসহ বিভিন্ন সংগঠন।

দিনটি উপলক্ষে নিহতদের স্মরণে প্রদীপ প্রজ্জ্বালন, খুনিদের প্রতীকী ফাঁসি ও আলোচনা সভাসহ বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করা হয়েছে। এসব কর্মসূচিতে অংশ গ্রহণকারীরা একাত্তরের পরাজিত শক্তিকে নির্মূলে দৃঢ় প্রতিজ্ঞা ব্যক্ত করেন।

তারা বলেন, ৭৫’র ১৫ আগস্টের ধারাবাহিকতায় ২১ আগস্টে বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যার মাধ্যমে আওয়ামী লীগকে ধ্বংস করতে চেয়েছিল। কিন্তু তাদের সেই চেষ্টা ব্যর্থ হয়েছে। আইভি রহমানসহ ২৪ প্রাণ ঝরে গেলেও অলৌকিকভাবে রক্ষা পেয়েছেন শেখ হাসিনা।

দিনটি উপলক্ষে বুধবার চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের সামনে তারেক রহমানসহ ২১ আগস্টের খুনিদের প্রতি ঘৃণা জ্ঞাপন ও আন্তর্জাতিক অপরাধের অভিযোগে যথাযথ করণীয় নির্ধারণের লক্ষ্যে জাতিসংঘসহ বিশ্ব বিবেকের কাছে চট্টগ্রাম নাগরিক উদ্যোগের ‘খোলা চিঠি’ পাঠানো কর্মসূচি পালন করা হয়।

এতে চট্টগ্রাম সিটি মেয়র ও নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আ জ ম নাছির উদ্দীন ২১ আগস্টের ভয়াবহ গ্রেনেড হামলার ‘মাস্টারমাইন্ড’ হিসেবে তারেক জিয়ার নাম উল্লেখ করে বলেন, ‘১ আগস্ট বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার ওপর হামলা আন্তর্জাতিক সন্ত্রাস। জাতির পিতার কন্যা ও গণতন্ত্রের মানসকন্যাকে হত্যাচেষ্টার ঘটনা বিশ্ব ইতিহাসে নজিরবিহীন নিন্দনীয় অপরাধ। অথচ বিশ্ব সভ্যতার ধারক বাহক দাবিদাররা লন্ডনে সেই হামলার মাস্টারমাইন্ড বিএনপি নেতা তারেককে আশ্রয় দিয়েছে।’

চট্টগ্রাম নাগরিক উদ্যোগ আহ্বায়ক ও বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের সহ-সভাপতি রিয়াজ হায়দার চৌধুরীর সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য দেন মুক্তিযোদ্ধা সংসদ চট্টগ্রাম মহানগর কমান্ডার মোজাফফর আহমেদ, চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাব সভাপতি আলী আব্বাস, পেশাজীবী সমন্বয় পরিষদের সভাপতি প্রফেসর ডা. একিউএম সিরাজুল ইসলাম, মুক্তিযোদ্ধা গবেষক প্রফেসর মুহাম্মদ ইদ্রিস আলী, চট্টগ্রাম উনয়ন কর্তৃপক্ষের বোর্ড সদস্য স্থপতি আশিক ইমরান, চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক হাসান ফেরদৌস, চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক চৌধুরী ফরিদ, চট্টগ্রাম নগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নোমান আল মাহমুদ ও প্যানেল মেয়র চৌধুরী হাসান মাহমুদ হাসনী প্রমুখ।

এদিকে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে নিহতদের স্মরণে প্রদীপ প্রজ্জ্বালন কর্মসূচি পালন করে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতি জোট চট্টগ্রাম। সংগঠনের চট্টগ্রাম জেলার সাধারণ সম্পাদক খোরশেদ আলমের সঞ্চালনায় এতে অংশ নেন চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান, চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের প্যানেল মেয়র চৌধুরী হাসান মাহমুদ হাসনী, কাউন্সিলর হাসান মুরাদ বিপতব, কাউন্সিলর ও নারী নেত্রী আবিদা আজাদ, লেখক ও সাংবাদিক নিজামুল ইসলাম সরফী, নগর যুবলীগের সদস্য সুমন দেবনাথ, জাবেদুল আলম সুমন, আয়োজক পরিষদের সমন্বয়কারী এমএ মান্নান শিমুল প্রমুখ।

খুনিদের প্রতীকী ফাঁসি

সমকালের চবি সংবাদদাতা জানিয়েছেন, শেখ হাসিনার ওপর গ্রেনেড হমলায় জড়িতদের বিচারের রায় কার্যকরের দাবিতে মৌন মিছিল করেছে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় (চবি) ছাত্রলীগ। এ সময় হামলাকারীদের প্রতীকী ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়। এজন্য সেখানে বানানো হয় বাঁশ-রশির ফাঁসির মঞ্চও। বুধবার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয় জিরো পয়েন্ট থেকে মৌন মিছিল শুরু হয়ে শহীদ মিনার, জয় বাংলা ভাস্কর্য, প্রসাশনিক ভবন প্রদক্ষিণ করে শহীদ মিনারের গিয়ে শেষ হয়। সেখানে সংক্ষিপ্ত সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

সমাবেশে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সভাপতি রেজাউল হক রুবেল বলেন, ‘১৯৭৫ থেকে ২০১৯ সাল পর্যন্ত ২৪ দফায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যার চেষ্টা করেছে স্বাধীনতা বিরোধী শক্তির দোষরেরা। তিনি (শেখ হাসিনা) বাংলার মানুষকে ভালোবাসেন বলে কোনো শক্তি তাকে বাংলার মানুষ থেকে বিছিন্ন করতে পারেনি। তবে ছাত্রলীগ রাজপথে লড়াই করে এই অপশক্তির বিচার আদায় করবে।’

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে