কাশ্মীর ও ভারতের মধ্যকার দেয়াল এখন দূর হবে: অমিত শাহ

0
439
ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। ছবি: এএফপি

ভারতীয় সংবিধানের ৩৭০ ধারা বাতিল বিষয়ে ব্যাপক আলোচনা-সমালোচনা হচ্ছে। এবার এ বিষয়ে মন্তব্য করেছেন ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। ৩৭০ ধারা বাতিলের মধ্য দিয়ে ভারত ও কাশ্মীরের মধ্যকার দেয়াল দূর হবে বলে মন্তব্য করেছেন তিনি।

জম্মু-কাশ্মীরের বিশেষ রাজ্যের মর্যাদা বাতিল ও দ্বিখণ্ডিত করে দেওয়ার বিষয়ে লোকসভায় বিতর্কের একপর্যায়ে মঙ্গলবার এসব কথা বলেন অমিত শাহ।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, লোকসভায় দাঁড়িয়ে অমিত শাহ বলেছেন, ‘৩৭০ ধারার কারণে মানুষের মনে সংশয় জাগত, কাশ্মীর আসলেই ভারতের অংশ কি না। এ ধারা বাতিলের পর এখন ভারত ও কাশ্মীরের মধ্যকার দেয়াল দূর হবে।’

লোকসভায় কাশ্মীরকে নিয়ে মোদি সরকারের এমন সিদ্ধান্তের দিনকে ‘কালো দিবস’ হিসেবে আখ্যা দিয়েছেন কংগ্রেস রাজনীতিবিদ মনিষ তেওয়ারি। তেওয়ারির এমন মন্তব্যের জবাব হিসেবে অমিত শাহ পাল্টা খোঁচা দিয়েছেন কংগ্রেসকেই। ১৯৭৫ সালে ইন্দিরা গান্ধীর সময়ে ভারতে জরুরি অবস্থার সময়কেই ‘কালো দিবস’ বলেছেন অমিত শাহ, ‘কালো দিবস এখন নয়, বরং তখন (১৯৭৫) ছিল। জরুরি অবস্থার সময় আপনারা পুরো ভারতকে একটি ইউনিয়নের মতো বানিয়ে রেখেছিলেন। সুতরাং আমাদের উপদেশ দিতে আসবেন না।’

আরেক কংগ্রেস নেতা অধীর রঞ্জন চৌধুরীর মন্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে অমিত শাহ টেনে এনেছেন জওহরলাল নেহরুকেও। নেহরু কাশ্মীর ইস্যুকে জাতিসংঘ পর্যন্ত না টানলে পাকিস্তান অধ্যুষিত কাশ্মীরের কোনো অস্তিত্বই থাকত না, এমন মন্তব্য করেছেন তিনি। অমিত শাহ বলেছেন, ‘কাশ্মীর ইস্যুকে জাতিসংঘে কে নিয়ে গিয়েছিল? পণ্ডিত জওহরলাল নেহরু। ৩৭০ ধারা বাতিলের এ সিদ্ধান্ত ঠিক না ভুল তা ইতিহাস ঠিক করে দেবে। কিন্তু যখনই এ বিষয়ে আলোচনা হবে, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির কথা মানুষ স্মরণ করবে।’

পাকিস্তান অধ্যুষিত কাশ্মীরের দাবির বিষয়ে ভারত এক চুলও ছাড় দেবে না, এমন কথাও বলেছেন অমিত শাহ। মোদি লোকসভায় উপস্থিত থাকা অবস্থায়ই অমিত শাহ বলেছেন, ‘বিজেপি কিংবা নরেন্দ্র মোদি কেউই পাকিস্তান অধ্যুষিত কাশ্মীরের বিষয়ে হাল ছেড়ে দিতে পারে না। অতীতের যেকোনো সময়ের মতোই পাকিস্তান অধ্যুষিত কাশ্মীরের প্রত্যেক অংশের ওপর আমাদের দাবি অব্যাহত থাকবে।’

বিচ্ছিন্নতাবাদীদের ‘পাকিস্তানের প্রতি সহানুভূতিশীল’ উল্লেখ করে তাঁদের সঙ্গে আলোচনার সম্ভাবনাও নাকচ করে দিয়েছেন বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ, ‘তাঁদের সঙ্গে কথা বলার দরকার কী? আমরা তাঁদের সঙ্গে কথা বলতে চাই না, বরং কাশ্মীরের জনগণের সঙ্গে কথা বলতে চাই।’

আরেক আইনপ্রণেতা আসাদউদ্দিন ওয়াইসি সরকারের এমন সিদ্ধান্তকে ঐতিহাসিক ভুল হিসেবে আখ্যা দিলে অমিত শাহ বলেন, ‘এটি কোনো ঐতিহাসিক ভুল নয়। বরং আমরা একটি ঐতিহাসিক ভুলকে সংশোধন করছি।’

অমিত শাহের বক্তব্যের পরপরই লোকসভায় এই বিল পাস হয়। এর আগে রাজ্যসভায় মায়াবতীর বহুজন সমাজ পার্টি, নবীন পট্টনায়েকের বিজু জনতা দল, জগন রেড্ডির ওয়াইএসআর কংগ্রেস, চন্দ্রবাবু নাইডুর তেলেগু দেশম পার্টি ও অরবিন্দ কেজরিওয়ালের আম আদমি পার্টির সমর্থন পেয়ে বিল পাস করেছে ক্ষমতাসীন দল বিজেপি।

সোমবার রাষ্ট্রপতির নির্দেশ জারির মধ্য দিয়ে ভারতীয় সংবিধানের ৩৭০ ধারা বাতিল করে দিয়েছে মোদি সরকার। এই ধারার কল্যাণে এত দিন বিশেষ রাজ্যের মর্যাদা পেয়ে আসছিল জম্মু-কাশ্মীর। এখন থেকে এর পরিচিতি হবে কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল হিসেবে। তবে এর বিধানসভা থাকবে। দুই কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল পরিচালিত করবেন দুই লেফটেন্যান্ট গভর্নর।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে