কানাডাকে হারিয়ে যুব বিশ্বকাপে বাংলাদেশের প্রথম জয়

0
59
বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দল

এবারের অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচেই হোঁচট খায় বাংলাদেশ দল।

ইংল্যান্ডের কাছে হারে ৭ উইকেটের বড় ব্যবধানে। এতে পরবর্তী রাউন্ডে যাওয়ার স্বপ্নে ফাটল ধরে টাইগার যুবাদের। নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে কানাডাকে ৮ উইকেটে হারিয়ে আশা বাঁচিয়ে রাখল বাংলাদেশের যুবারা।

টস জিতে ব্যাটিং করতে বাংলাদেশের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে ৪৪.৩ ওভারে ১৩৬ রানে গুটিয়ে যায় কানাডা। জবাবে ২ উইকেট হারিয়ে ১১৯ বলে আগে জয় নিশ্চিত করে বাংলাদেশ। ২০ ওভারে বাংলাদেশের জয়ের জন্য লাগত মাত্র ২ রান। জোহাল সিংকে ছক্কায় উড়িয়ে দলকে জয়ের বন্দরে পৌঁছে দেন আইচ মোল্লা।

সেন্ট কিটসের কোনারি স্পোর্টস ক্লাবে শুরু থেকেই দুর্দান্ত বোলিং করে বাংলাদেশ। ওপেনার অনুপ চিমা ছাড়া কেউই টাইগারদের বোলিং তোপে লড়াই করতে পারেননি। মূলত তার ৬৩ রানের ইনিংসের ওপর ভর করে কানাডা দেড়শোর কাছাকাছি পৌঁছাতে পেরেছে। ১১৭ বলে ৭ চারে নিজের ইনিংসটি সাজান উইকেট কিপার এই ব্যাটার।

অনুপ চিমা ছাড়া দুই অংকের ঘরে পৌঁছাতে পেরেছেন কৈরব শর্মা (১৪), মোহিত প্রশার (১২) এবং অধিনায়ক মিহির প্যাটেল (১১)। ৪৪.৩ ওভারে সবকটি উইকেট হারিয়ে কানাডার সংগ্রহ দাঁড়ায় ১৩৬ রান।

বাংলাদেশের পক্ষে বল হাতে ১০ ওভারে এক মেডেনসহ ৩৭ রান খরচায় ৪ উইকেট নেন মেহরব। ডানহাতি পেসার রিপন মন্ডল ২৪ রানে সমান ৪টি উইকেট। বাকি ২ উইকেট যায় আশিকুর জামানের ঝুলিতে।

জয়ের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে টাইগার ওপেনার মাহফিজুল ইসলাম আউট হন ১২ রান করে। এরপর দ্বিতীয় উইকেটে দলকে জয়ের বন্দরে নিয়ে যান ইফতি ও প্রান্তিক। দ্বিতীয় উইকেটে তাদের পার্টনারশিপ থেকে আসে ৭৬ রান। প্রান্তিক ৫২ বল খেলে ৩৩ রানে আউট হলে ভাঙে তাদের এই জুটি। পরে ব্যক্তিগত ফিফটি তুলে নেন ইফতি। দলকে আর বিপদে পড়তে না দিয়ে অপরাজিত থাকেন ৬১ রান করে। ২০ রানে অপরাজিত থাকেন আইচ মোল্লা।

শনিবার বাংলাদেশের তৃতীয় ম্যাচ সংযুক্ত আরব আমিরাতের বিপক্ষে। সুপার লিগ কোয়ার্টার ফাইনাল খেলতে হলে বাংলাদেশকে শেষ ম্যাচে জিততেই হবে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে