কর্মবিরতিতে ট্যাংকলরি বন্ধ

0
174
বগুড়ার বাইপাস সড়কের পেট্রলপাম্প। সকাল ৬টা থেকে বগুড়ার বেশির ভাগ পেট্রলপাম্পে জ্বালানি তেল বিক্রি, ডিপো থেকে উত্তোলন এবং পরিবহন বন্ধ রয়েছে।

জ্বালানি তেল বিক্রির প্রচলিত কমিশন বৃদ্ধিসহ ১৫ দফা দাবিতে অনির্দিষ্টকালের জন্য কর্মবিরতি শুরু করেছে ট্যাংকলরি মালিক-শ্রমিক ঐক্য পরিষদ, জ্বালানি তেল পরিবেশক সমিতি, পেট্রল পাম্প মালিক সমিতিসহ জ্বালানি ব্যবসায়ীরা। আজ রোববার সকাল ৬টা থেকে ওই কর্মবিরতি শুরু হয়েছে। রাজশাহী ও রংপুরেও কর্মবিরতি চলছে।

শ্রমিকেরা পদ্মা, মেঘনা ও যমুনা তিনটি তেল ডিপোর তেল উত্তোলন ও বিপণন বন্ধ রেখে ওই কর্মসূচি পালন করছেন। ফলে খুলনাসহ ১৫ জেলায় তেল সরবরাহ বন্ধ রয়েছে।

রংপুরে পেট্রল পাম্পগুলোতে ১ ডিসেম্বর থেকে ১৫ দফা দাবিতে অনির্দিষ্টকালের কর্মবিরতি শুরু।

আন্দোলনকারীরা বলছে, দীর্ঘদিন ধরে জ্বালানি ব্যবসায়ীদের যৌক্তিক অমীমাংসিত দাবি নিয়ে সংশ্লিষ্টরা তাল বাহানা করছেন। বারবার প্রতিশ্রুতি ভঙ্গ করেছেন। তাঁদের অভিযোগ, ফিলিং স্টেশন তথা জ্বালানি ব্যবসায়ীদের ওপর বিভিন্ন দপ্তর থেকে বিভিন্ন ধরনের বিধান অযথা চাপিয়ে দেওয়া হয়েছে। এগুলো মেনে নিয়ে জ্বালানি ব্যবসা করা আদৌ সম্ভব নয়। তাই বাধ্য হয়ে জ্বালানি ব্যবসায়ীরা অনির্দিষ্টকালের কর্মবিরতি পালন করছেন।

১৫ দফা দা‌বি‌তে ১ ডি‌সেম্বর থে‌কে অনির্দিষ্টকাল কর্মবিরতি পালনের ঘোষণা দিয়েছে বাংলাদেশ পেট্রলপাম্প ও ট্যাংকলরি মালিক শ্রমিক ঐক্য পরিষদ। শুক্রবার রাতের ছবি। আফরিন ফিলিং স্টেশন, বোসপাড়া, রাজশাহী।

খুলনা তেল পরিবেশক সমিতির সাধারণ সম্পাদক শেখ মুরাদ হোসেন বলেন, কর্মবিরতি চলাকালে খুলনার পদ্মা, মেঘনা, যমুনা তেল ডিপো থেকে তেল উত্তোলন ও বিপণন বন্ধ রয়েছে। খুলনা বিভাগের ১০ জেলাসহ বৃহত্তর ফরিদপুরের ৫ জেলায় চলছে না ট্যাংকলরির চাকা। একই সঙ্গে পেট্রল পাম্পে তেল বিক্রি বন্ধ রয়েছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে