এবার দখলমুক্ত লিমানে গণকবর পাওয়ার কথা বলল ইউক্রেন

0
58
লিমানে পাওয়া গণকবরে ফরেনসিক কর্মকর্তারা কাজ করছেন ছবি: রয়টার্স

দ্বিতীয় গণকবরের এলাকায় ঠিক কতজনের মরদেহ আছে, তা এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি। তবে সেখানে বেসামরিক নাগরিকের পাশাপাশি সেনাসদস্যদেরও দেহাবশেষ আছে। কী কারণে এবং কখন তাঁদের মৃত্যু হয়েছে, তা–ও নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়, আলাদা করে ইউক্রেনীয় কর্তৃপক্ষের এ দাবির সত্যতা যাচাই করতে পারেনি তারা।

এক টেলিগ্রাম পোস্টে কিরিলেনকো লিখেছেন, সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা দুটি গণকবরের এলাকা নিয়েই তদন্ত শুরু করেছেন। তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত এ ঘটনা নিয়ে গুঞ্জন না তুলতে জনগণের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

সম্প্রতি কৌশলগত লিমান শহর থেকে রাশিয়ার সেনারা সরে গেছেন। লিমান হলো দোনেৎস্ক অঞ্চলের একটি শহর। আর সম্প্রতি রাশিয়া যে চার ইউক্রেনীয় অঞ্চলকে রুশ ফেডারেশনের অন্তর্ভুক্ত করেছে, তারই একটি দোনেৎস্ক। ইউক্রেন ও তাদের পশ্চিমা মিত্ররা রাশিয়ার এ পদক্ষেপকে অবৈধভাবে ভূখণ্ড দখল বলে আখ্যা দিয়েছে।

এর আগে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি অভিযোগ করেছিলেন, বিভিন্ন জায়গায় রাশিয়ার সেনারা ইচ্ছাকৃতভাবে বেসামরিক নাগরিকদের হত্যা করছেন।

ইউক্রেনীয় বাহিনী বলছে, তারা গণকবরের সন্ধান পেয়েছে। বেসামরিক নাগরিকদের হাত ও পা বেঁধে হত্যা করার প্রমাণ পেয়েছে তারা।

ইউক্রেনীয় কর্তৃপক্ষ বলছে, রুশ সেনারা পূর্বাঞ্চলীয় ইজিয়াম শহর থেকে সরে যাওয়ার কয়েক দিন পর ওই এলাকায়ও শত শত কবরের সন্ধান পেয়েছে তারা। মৃত্যুর আগে ওই সব মানুষের সঙ্গে কী ঘটেছিল, তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি। তবে ধারণা করা হচ্ছে, তাঁদের কেউ গোলার আঘাতে আবার কেউ কেউ যথাযথ স্বাস্থ্য সুরক্ষাসেবা না পেয়ে মারা গেছেন।

বসন্তে রাজধানী কিয়েভের কাছে বুচাতে গণকবর পাওয়ার কথা জানিয়েছিলেন ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট জেলেনস্কি। মারিউপোলের কাছেও গণকবর পাওয়ার কথা বলেছিলেন তিনি।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.