এনআরসি নিয়ে বাম-কংগ্রেস-তৃণমূলের যৌথ প্রস্তাব

0
352
এনআরসি প্রকাশের দিন লাইনে দাঁড়িয়ে আসামের মানুষ।এনডিটিভি

ভারতের উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্য আসামের চূড়ান্ত জাতীয় নাগরিকপঞ্জি (এনআরসি) নিয়ে বিজেপিকে কোণঠাসা করতে বিধানসভায় যৌথ প্রস্তাব আনছে বাম, কংগ্রেস এবং তৃণমূল কংগ্রেস। শুক্রবার দ্বিতীয়ার্ধে এই প্রস্তাব আনা হতে পারে।

রাজ্যের বিরোধী দলনেতা আব্দুল মান্না বলেন, গত দুদিন ধরে আসামের এনআরসির বিরুদ্ধে আমাদের (বাম ও কংগ্রেস) প্রস্তাব আনতে দেওয়া নিয়ে দ্বিধাগ্রস্ত ছিল তৃণমূল কংগ্রেস। আজ তারা রাজি হয়েছে। এখন এটা ঠিক হয়েছে, শুক্রবার একসঙ্গে প্রস্তাব আনবে শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস এবং বিরোধী বাম ও কংগ্রেস। এটা নিয়ে আলোচনা হবে।

বিধানসভার বিশেষ অধিবেশন ২৬ আগস্ট শুরু হয়েছে। সেদিন থেকেই মূল্যবৃদ্ধি এবং পে কমিশন লাগু করার মতো বিষয়গুলি নিয়ে আলোচনার দাবি জানিয়েছে বাম এবং কংগ্রেস, যদিও সেই দাবি খারিজ হয়ে যায়।

৩১ আগস্ট এনআরসির চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশের পর ১৯ লাখ মানুষের নাম বাদ পড়ে। বিষয়টি নিয়ে আলোচনার দাবি তোলে বামফ্রন্ট এবং কংগ্রেস। খবর এনডিটিভির।

সিপিআইএম নেতা সুজন চক্রবর্তী বলেন, গত দুদিন ধরে এই দাবি মানা হচ্ছিল না। সেই কারণে আমরা মনে করেছিলাম,  যারা এনআরসির চূড়ান্ত তালিকা থেকে বাদ পড়েছেন, তাদের দুর্ভোগ সম্পর্কে চিন্তিত নয় তৃণমূল কংগ্রেস। তবে আজ তারা জানায়, যে, তারা যৌথ প্রস্তাব আনবে।

বিজেপির পরিষদীয় দলনেতা মনোজ টিগ্গা জানান, প্রস্তাবের বিরোধিতা করবে তার দল।

তিনি বলেন, “জাতীয় নিরাপত্তার কথা মাথায় রেখে, অনুপ্রবেশকারীদের তাড়াতে এনআরসি করা হয়েছে। তারা যদি এর বিরোধিতা করে, তারা দেশের স্বার্থের বিরুদ্ধে কাজ করছে।

সোমবার তৃণমূল সিদ্ধান্ত নেয়, এনআরসির বিরোধিতায় ৭ এবং ৮ সেপ্টেম্বর রাজ্যজুড়ে প্রতিবাদ করবে তারা।

এনআরসিতে নাম তোলার আবেদন করেছিলেন ৩ কোটি ৩০ লাখ ২৭ হাজার ৬৬১ জন। এর মধ্যে ১৯ লাখ ৬ হাজার ৬৫৭ জনের নাম চূড়ান্ত তালিকা থেকে বাদ পড়ে।

বাদ পড়ারা ১২০ দিনের মধ্যে ফরেনার্স ট্রাইবুনালে আবেদন করতে পারবেন বলে জানানো হয়েছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে