ইউটিউব থাম্বনেইল তৈরি করে আয় করবেন যেভাবে

0
66
ইউটিউব, রয়টার্স

আয়ের পরিমাণ

ছোট কাজ, তাই আয়ও কম। তবে ইউটিউব থাম্বনেইল তৈরি করতে সময় খুবই কম প্রয়োজন হয়। তাই গ্রাফিকসে দক্ষ হলে নিয়মিত একাধিক ক্লায়েন্টের ইউটিউব থাম্বনেইল তৈরি করে ভালোই আয় করা যায়।

মার্কেটপ্লেসে সাধারণত একটি থাম্বনেইল তৈরির জন্য ১ ডলার থেকে সর্বোচ্চ ২০ ডলার পাওয়া যায়। মনে রাখতে হবে, কাজের মান ভালো হলে ক্লায়েন্টরা ভিডিও তৈরির পরপরই আপনাকে দিয়ে থাম্বনেইল তৈরি করাবে। ফলে নিয়মিত কাজ পাওয়া যাবে।

এভাবে বেশ কিছু ক্লায়েন্টের কাজ পেলে আয়ও ভালো হবে। মার্কেটপ্লেসে এমনও ক্লায়েন্ট রয়েছেন, যাঁদের প্রতিদিনই ১০ থেকে ৫০টি থাম্বনেইল প্রয়োজন হয়।

ইউটিউব থাম্বনেইল তৈরির জন্য খুব বেশি দক্ষতার প্রয়োজন হয় না। গ্রাফিকসের সাধারণ কাজ জানা যেকোনো ব্যক্তি ১২৮০ বাই ৭২০ পিক্সেল রেশিওতে বাক্য, এক বা একাধিক ছবি, লোগো দিয়ে সহজেই সুন্দর সুন্দর ইউটিউব থাম্বনেইল তৈরি করতে পারেন। আপনি যে ফরম্যাটেই কাজ করেন না কেন, ক্লায়েন্টকে কিন্তু অবশ্যই জেপিইজি এবং পিএনজি ফরম্যাটে নকশাটি দিতে হবে। তবে চিন্তার কিছু নেই, ফটোশপে সহজেই ফরম্যাট পরিবর্তন করা যায়। ফরম্যাট পরিবর্তনের জন্য ফটোশপের ফাইল মেনু থেকে এক্সপোর্ট অপশনে থেকে এক্সপোর্ট অ্যাজ-এ ক্লিক করলেই একটি উইন্ডো দেখা যাবে। এবার সেটিংসের নিচে ফরম্যাট অপশনে জেপিইজি এবং পিএনজি ফরম্যাট নির্বাচন করে এক্সপোর্ট অপশনে ক্লিক করে ফাইলটি সংরক্ষণের লোকেশন নির্বাচন করতে হবে।

যেসব বিষয়ে সতর্ক থাকতে হবে

ইউটিউব থাম্বনেইল তৈরির সময় কোনোভাবেই মেধাস্বত্ব করা ছবি, লেখা, লোগো ইত্যাদি ব্যবহার করা যাবে না। মেধাস্বত্ব করা কনটেন্টের মাধ্যমে ইউটিউব থাম্বনেইল তৈরি করলে ক্লায়েন্টের চ্যানেল কপিরাইট ভঙ্গের দায়ে অভিযুক্ত হতে পারে। ফলে আপনি আর কাজ পাবেন না। নিরাপদ থাকতে কাজ করার আগে ক্লায়েন্টকেই লেখা, ছবি ও লোগো দিতে বলবেন। যদি ক্লায়েন্ট অন্য ওয়েবসাইট থেকে কনটেন্ট সংগ্রহ করতে বলেন, তবে অবশ্যই বিনা মূল্যে ব্যবহার উপযোগী মেধাস্বত্বহীন কনটেন্ট ব্যবহার করবেন। আপনি যে ওয়েবসাইট থেকে কনটেন্ট সংগ্রহ করেছেন, সেটির নাম ক্লায়েন্টকে জানাতে পারেন।

কাজ পাওয়ার আগে

যে কাজই করেন না কেন, আপনার একটি পোর্টফোলিও থাকা খুবই জরুরি। কম করে হলেও ৫০ থেকে ১০০টি ইউটিউব থাম্বনেইল তৈরির নকশা পোর্টফোলিওতে যুক্ত করতে হবে। এতে আপনার কাজ সম্পর্কে ভালোভাবে জানতে পারবেন ক্লায়েন্টরা। অনলাইনে পোর্টফোলিও তৈরির জন্য বিহ্যান্স (www. behance.net) ও ড্রিবল (https://dribbble.com/) বেশ জনপ্রিয়।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.