আ.লীগে সম্মেলনে গণফোরাম যেতে পারে ,তবে বাকিরা এখনো নিশ্চিত নয়

0
198
আওয়ামী লীগের ২১তম জাতীয় সম্মেলন শুরু কাল শুক্রবার। পদ্মা সেতুর অবয়ব সামনে রেখে নৌকার ওপর সাজানো হয়েছে মূল মঞ্চ।

আওয়ামী লীগের ২১তম জাতীয় সম্মেলন উপলক্ষে নির্বাচনের আগে সংলাপে অংশ নেওয়া দলগুলোকে আমন্ত্রণ জানিয়েছে ক্ষমতাসীন দলটি। এরই মধ্যে অনেক দলের কাছে দাওয়াতপত্র পৌঁছে গেছে। তবে মহাজোটের বাইরে থাকা দলগুলোর অধিকাংশই যাওয়ার ব্যাপারে ইতিবাচক নয়।

কাল শুক্র ও শনিবার সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে আওয়ামী লীগের জাতীয় সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। গত রোববার এক সংবাদ সম্মেলনে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের জানান, যারা একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সংলাপে অংশ নিয়েছিলেন তাদের দাওয়াত করা হচ্ছে।

আজ বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১১টায় বিএনপির চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে গিয়ে সম্মেলনের দাওয়াত দেওয়া হয়। বিএনপি চেয়ারপারসনের মিডিয়া উইং কর্মকর্তা শায়রুল কবির খান বলেন, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় উপ-কমিটির সদস্য জিয়া উদ্দিন আহমেদ দাওয়াতপত্র নিয়ে আসেন। বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন, মওদুদ আহমদ ও মির্জা আব্বাসকে দাওয়াত করা হয়।

বিএনপি যাবে কিনা সে বিষয়ে জানতে চাইলে স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, তিনি এখনো কিছু জানেন না। শায়রুল কবির খান জানান, আগামীকাল বিকেল সাড়ে তিনটায় সংবাদ সম্মেলন ডেকেছে বিএনপি। গুলশানে বিএনপির কার্যালয়ে দলের স্থায়ী কমিটির সদস্যরা সেখানে উপস্থিত থাকবেন। অন্যদিকে আওয়ামী লীগের সম্মেলনও উদ্বোধন হবে বেলা তিনটায়।

গণফোরামের নির্বাহী সভাপতি সুব্রত চৌধুরী বলেন, ‘দাওয়াত পেয়েছি। সাধারণ সম্পাদক ও সভাপতিও পেয়েছেন। যাওয়ার সম্ভাবনাই বেশি। তবে ড. কামাল হোসেন দেশের বাইরে আছেন, আজ রাতে ফেরার কথা।’

বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির (সিপিবি) মো. শাহ আলম দাওয়াত পাওয়ার কথা জানিয়ে বলেন, ‘আমরা সম্ভবত যাচ্ছি না। বিষয়টি নিয়ে দলে আলোচনা করা হবে।’ বাম গণতান্ত্রিক জোটের আরেক দল গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়কারী জোনায়েদ সাকি দাওয়াতের বিষয়টি নিয়ে এখনো কিছু জানেন না। তবে পেলে যাবেন কিনা প্রশ্নের জবাবে বলেন, ‘আওয়ামী লীগের নিয়মিত সম্মেলন হচ্ছে সেটা একটা স্বাভাবিক প্রক্রিয়া। কিন্তু বর্তমান রাজনৈতিক বাস্তবতায় সে সম্মেলনে বিরোধী দলগুলোর যাওয়ার মতো বাস্তবতা নেই।’

নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না দাওয়াতপত্র পাওয়ার কথা জানিয়ে বলেন, ‘এখনো কিছু ভাবিনি। অন্যদের সঙ্গে কথা বলতে হবে।’

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে