অতিরিক্ত দামে লবণ বিক্রির দায়ে ৪ ব্যবসায়ীকে দণ্ড

0
163
প্রতীকি ছবি

লবণের মূল্য অস্বাভাবিকভাবে বেড়ে গেছে এমন গুজব সৃষ্টি করে অতিরিক্ত দামে লবণ বিক্রির অভিযোগে নেত্রকোনার কেন্দুয়ায় চার লবণ ব্যবসায়ীকে ১ লাখ ৬০ হাজার টাকা জরিমানা করে তা আদায় করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

আজ মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০টা থেকে বিকেল পাঁচটা পর্যন্ত উপজেলার বিভিন্ন বাজারে অভিযান চালিয়ে এসব জরিমানা আদায় করা হয়।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আল-ইমরান রুহুল ইসলাম ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন। এ সময় কেন্দুয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ রাশেদুজ্জামানসহ পুলিশ সদস্যরা ছিলেন।

জরিমানা প্রাপ্ত ব্যবসায়ীরা হলেন, কেন্দুয়া বাজারের বাচ্চু মিয়া, বেখৈরহাটি বাজারের শাহীন ও আরশাদ আলী এবং রামপুর বাজারের মুজাহিদ স্টোরের মালিক । তাঁদের যথাক্রমে ৭০ হাজার, ৫০ হাজার, ২০ হাজার ও ২০ হাজার টাকা করে জরিমানা করা হয়।

কেন্দুয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ রাশেদুজ্জামান বলেন, লবণের বাজার স্বাভাবিক রয়েছে। তবে কেউ যদি গুজব সৃষ্টি করে কিংবা অতিরিক্ত মূল্যে লবণ বিক্রি করে তাহলে তাদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

লবণের কেজিপ্রতি দর ১০০ টাকা ছাড়িয়ে যাবে এমন গুজব ছড়িয়ে পড়ায় রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন জেলায় হঠাৎ করেই লবণ কেনার হিড়িক পড়েছে। এ আশঙ্কায় অনেকে বাড়তি লবণ কিনে রাখছেন। তবে শিল্প মন্ত্রণালয় এক বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে, দেশে বর্তমানে সাড়ে ৬ লাখ মেট্রিক টনের বেশি ভোজ্যলবণ মজুত রয়েছে। এর মধ্যে কক্সবাজার ও চট্টগ্রামের লবণচাষিদের কাছে ৪ লাখ ৫ হাজার মেট্রিক টন এবং বিভিন্ন লবণ মিলের গুদামে ২ লাখ ৪৫ হাজার মেট্রিক টন লবণ মজুত রয়েছে।

আর দেশে লবণ বিপণনকারী শীর্ষ চার কোম্পানি বলেছে, দেশে লবণের কোনো ঘাটতি নেই। বরং বাড়তি লবণ নিয়ে কোম্পানিগুলো ও চাষিরা বিপাকে আছে। দাম বাড়ার আশঙ্কাটি পুরোটাই গুজব।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে